আদার কন্দ পচা রোগ দূর করার উপায়

আদা আমাদের দেশের একটি গুরত্বপূর্ণ মসলা। এটি চাষ করা বেশ লাভজনক। দেশের অনেক জেলায় এটি এখন বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে। তবে আদার কন্দ পচা রোগ আদা চাষিদের মারাত্মক ক্ষতি করে। এ রোগের কারণে আদার ফলনে অনেক ক্ষতি হয়। ছত্রাক, রাইজম ফ্লাই ও কৃমির সংঘবদ্ধ আক্রমণে এ রোগের প্রধান কারণ।

আদার কন্দ পচা রোগে প্রাথমিকভাবে গাছের নিচের দিকের পাতার অগ্রভাগ হলুদাভ দেখায়। পরে উপরে ও নিচের সমস্ত পাতা হলুদ হয়ে যায়। গাছ ঝিমিয়ে পড়ে। পচনের ফলে কন্দ নরম হয়ে ফুলে ওঠে। পচা গন্ধে আকৃষ্ট হয়ে রাইজম ফ্লাই নামক পোকা আদায় আক্রমণ করে। আক্রান্ত গাছ টান দিলে সহজে উঠে আসবে।

রোগ প্রকাশ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কাণ্ড ও মাটির সংযোগস্থলে ব্লাইটক্স ৫০ এক লিটার পানিতে ৪ গ্রাম হারে মিশিয়ে স্প্রে করুন। এর ১০ থেকে ১২ দিন পর রিডোমিল গোল্ড এক লিটার পানিতে ৪ গ্রাম অথবা সিকিউর এক লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে স্প্রে করুন।

এভাবে পর্যায়ক্রমিকভাবে ৪-৫ সপ্তাহ পর্যন্ত স্প্রে করুন। পচা দুর্গন্ধ বের হলে রাইজম ফ্লাই পোকা দমনের জন্য ডাসবান ১০জি বা সেভিন এক লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে ১০ দিন পর পর ২-৩ বার স্প্রে করুন। এছাড়া আক্রান্ত গাছ রাইজোমসহ সম্পূর্ণরূপে তুলে ধ্বংস করতে হবে।

একই জমিতে বার বার আদা চাষ না করা। ব্যাভিস্টিন বা অনুমোদিত যেকোন ছত্রাকনাশক দিয়ে বীজকন্দ শোধন করে রোপণ করা। এছাড়া আদা চাষের জন্য উঁচু সুনিষ্কাশিত সুবিধাযুক্ত জমি নির্বাচন করতে হবে। এসব নিয়ম মেনে চললে আদার কন্দ পচা রোগ