আলুর কাটুই পোকা দমন ব্যবস্থা

কাটুই পোকা চারা গাছ কেটে দেয় এবং আলুতে ছিদ্র করে আলো ফসলের ক্ষতি করে থাকে। পোকা দিনের বেলায় মাটির নিচে লুকিয়ে থাকে। আলুর কাটা গাছ অনেক সময় কাটা গোড়ার পাশেই পড়ে থাকতে দেখা যায়।

কাটুই পোকা গাছের গোড়া কেটে ক্ষতি করে। ডিম ফুটে বের হয়ে কীড়া পাতার বাইরের (ত্বক) অংশ খেয়ে থাকে।পোকা চেনার উপায়: কাটুই পোকা বেশ শক্তিশালী, ৪০-৫০ মিমি লম্বা| পোকার উপর পিঠ কালচে বাদামী বর্ণের, পার্শ্বদেশ কালো রেখাযুক্ত এবং বর্ণ ধূসর সবুজ। শরীর নরম ও তৈলাক্ত ।

আলুর কাটুই পোকা দমন ব্যবস্থা:

১। সকাল বেলা কেটে ফেলা চারার আশে পাশে মাটি খুড়ে পোকা বের করে মেরে ফেলা ।

২। কেরোসিন (২-৩ লি./ হেক্টর হারে) মিশ্রিত পানি সেচ দেয়া।

৩। পাখি বসার জন্য ক্ষেতে ডালপালা পুঁতে দেয়া।

৪। রাতে ক্ষেতে মাঝে মাঝে আবর্জনা জড়ো করে রাখলে তার নিচে কীরা এসে জমা হবে, সকালে সেগুলোকে মেরে ফেলা।

৫। ক্ষেতের মাটি আলগা করে দিয়ে পোকা পাখিদের খাবার সুযোগ করে দেওয়া।

৬. এ পোকা নিশাচর, রাতের বেলা সক্রিয় থাকে- তাই রাতে হারিকেন বা টর্চ দিয়ে খুঁজে খুঁজে পোকা মেরে ফেলা।

৭। ফুরাডান (কার্বোফুরান) ৫জি ০৮কেজি/একর বা অপটিমাস (ক্লোথিয়ানিডিন) ৫জি ১৬কেজি/ একর আলু বীজ রোপণের সময় সারিতে নালার মধ্যে বা সমস্ত জমিতে ছিটিয়ে মাটি দিয়ে ঢেকে দিন। লক্ষ্য রাখবেন দানা ভেজার জন্য মাটিতে যেন রস থাকে।

৮। ক্লোরপাইরিফস গ্রুপের কীটনাশক যেমন ডারসবান ০৫ মিলি./লি হারে অথবা (ক্লোরপাইরিফস+ সাইপারমেথ্রিন) গ্রুপের কীটনাশক যেমন: সুপারফাস্ট ৫৫ ইসি বা নাইট্রো বা সেতারা ৫৫ ইসি ০২ মি.লি./লি. হারে অথবা ল্যাম্ডা সাইহ্যালোথ্রিন গ্রুপের কীটনাশক যেমনঃ পদ্মা ল্যামডা ৫ইসি বা ক্যারাটে/ রিভা ২.৫ ইসি ১-১.৫ মি.লি. / লি. হারে পানিতে মিশিয়ে শেষ বিকেলে বা সন্ধ্যার পর গাছের গোড়ায় স্প্রে করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *