ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগ দূর করবেন যেভাবে

আমাদের দেশে এখন আধুনিক প্রযুক্তিতে ধান চাষ হচ্ছে। তাই বেশি ফলন ও লাভের জন্য ধান গাছের সঠিক পদ্ধতিতে যত্ন নিতে হবে। ধান গাছের বিভিন্ন ধরনের রোগ হয়ে থাকে। এসব রোগের মধ্যে ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগ অন্যতম। ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগ দমনের উপায় জেনে নিয়ে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়ে ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগ দূর করা সম্ভব।

ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগ একটি বীজবাহিত রোগ। ধান পাতার ফোস্কাপড়া রোগের লক্ষণ সাধারণত বয়স্ক পাতার আগায় দেখা যায়। মাঝে মাঝে পাতার মাঝখানে বা কিনারেও এ রোগ হতে পারে। দাগ দেখতে অনেকটা জল ছাপের মতো মনে হয় এবং বড় হয়ে অনেকটা ডিম্বাকৃতি বা আয়তাকার এবং জলপাই রঙের মতো মনে হয়। দাগের ভেতর গাঢ় বাদামি চওড়া রেখা এবং হালকা বাদামি রেখা পর পর বেস্টন করে থাকে। তাতে কিছুটা ডোরাকাটা দাগের মতো মনে হয়।

বেশি আক্রমণে পাতা শুকিয়ে খড়ের রঙের মতো হয় এবং দাগের কিনারা হালকা বাদামি এলাকার মতো দেখা যায়। দাগের পরিধি ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়ে পুরো পাতাতেই ছড়াতে পারে। পাতার ফোস্কাপড়া রোগ চেনার সহজ উপায় হলো আক্রান্ত পাতা কেটে স্বচ্ছ পানিতে ৫ থেকে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখলে যদি পুঁজ বা দুধ জাতীয় পদার্থ কাটা অংশ থেকে বের হয় তবে বুঝতে হবে এটি ব্যাকটেরিয়াজনিত পাতা পোড়া রোগ। আর যদি কোনো কিছু বের না হয় তবে সেটা পাতার ফোস্কাপড়া রোগ।

এই রোগ দমনের জন্য বেশ কিছু উপায় রয়েছে। যেমন, এ জন্য জমি আগাছামুক্ত রাখতে হবে। পরিমিত ইউরিয়া সার ব্যবহার করতে হবে। আক্রান্ত ক্ষেত থেকে বীজ সংগ্রহ করা যাবে না। বেশি আক্রমণের ক্ষেত্রে সালফার ছত্রাক নাশক (যেমন, থিওভিট) ১কেজি প্রতি একরে প্রয়োগ করতে হবে। অন্যদিকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নভাবে ধান চাষ করতে হবে।

কার্বেন্ডাজিম গ্রুপের ঔষধ দিয়ে বীজ শোধন করে নিতে হবে। প্রতি কেজি বীজের জন্য ৩ গ্রাম এক লিটার পানিতে গুলে এক রাত ভিজিয়ে রাখতে হবে। এ ছাড়া সুষম পরিমাণে ইউরিয়া, টিএসপি এবং পটাশ সার ব্যবহার করতে হবে। লাঙল দিয়ে জমি চাষ করে শুকিয়ে নিয়ে নাড়া জমিতেই পুড়িয়ে ফেলতে হবে। ধানের জাত অনুসারে সঠিক দূরত্বে চারা রোপণ করতে হবে।

তথ্য সূত্র: কৃষি তথ্য সার্ভিস