সহজে সার রক্ষণাবেক্ষণ পদ্ধতি

কৃষিকাজের জন্য সার একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। কম উর্বর কিংবা অনুর্বর জমিতে ভালো ফসল ফলাতে হলে সার প্রয়োগ করতে হবে। তাই ফসলে ব্যবহৃত সার ভালো রাখতে গেলে বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলা উচিত।

সার সুরক্ষার ক্ষেত্রে প্রথমেই খেয়াল রাখতে হবে, সারের বস্তা যখন চালান গাড়িতে তোলা হয়, তখন শ্রমিকরা সারের বস্তায় হুক মারেন। প্রথমত সারের বস্তায় হুক মারা উচিত নয়। সারের বস্তা কখনো মাটিতে ছেঁচড়ে নিয়ে যাওয়া উচিত নয়। মনে রাখতে হবে সার চালান করার সময় কোনোমতেই যেন তাতে পানি না লেগে যায়। পানি লাগলেও সারের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। কখনো চটের বস্তাতে সার রাখা উচিত নয়, কারণ চটের বস্তাতে বাতাসের আর্দ্রতা লেগে সার ভীষণ রকমের ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

সার রক্ষার উপযুক্ত আবহাওয়া দরকার। তবে উষ্ণতা ও আর্দ্রতা থেকে সারকে কখনোই পুরোপুরি বাঁচানো সম্ভব নয়। সঠিক চেষ্টা করলে সারকে আর্দ্র হওয়ার থেকে রক্ষা করা যেতে পারে। গোটা দিন আলো বাতাসযুক্ত ঘরে সার রেখে দিলেও, সন্ধ্যার সময় বাতাসের আর্দ্রতা যখন বেশি থাকে সেই সময় ঘরের সমস্ত দরজা ও জানালা বন্ধ করে দিলে সারকে আর্দ্রতা থেকে রক্ষা করা যেতে পারে। সারে আর্দ্র হয়ে গেলে তা জমাট বেঁধে যায়, কৃষকরা পরে তা ফসলে ব্যবহার করতে গেলে ক্ষতিগ্রস্তই হওয়ার সম্ভবনা বেশি।

সার রক্ষণাবেক্ষণের সহজতম পদ্ধতি জানা থাকলে যে কোনো সময় এটি নিরাপদ রাখা যায়। সার যেখানে মজুত হবে, সেই ঘর যেন শুকনো এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়। দেওয়ালে এবং ঘরের সিলিঙে যাতে সারের বস্তা থাকে থাকে রাখার ফলে না লেগে যায় তার খেয়াল রাখতে হবে।

সারের বস্তা যেই ঘরে মজুত হবে সেই ঘরে যদি আলাদা আলাদা করে তাকের ব্যবস্থা করা হয় তবে তা হবে সবচেয়ে ভালো উপায়। এতে কোন সারটি আগে এসেছে আর কোনটা পরে মজুতকরণের জন্য রাখা হয়েছে সেটি সহজেই জানতে পারা যাবে। বিনা কারণে পুরোনো সারের বস্তা পড়ে নষ্ট হবে না।

সারের বস্তাগুলোকে এমনভাবে পর পর সাজাতে হবে যাতে সেগুলো ধসে না যায়। এর জন্য সরাসরি বস্তাগুলো না সাজিয়ে একটু কোনাকুনি সাজাতে হবে। সারের বস্তা সাধারণত প্লাস্টিক জাতীয় পদার্থ দিয়ে তৈরি হয়, তাই এগুলোকে অনেকটা উঁচুতে রাখা উচিত নয়, অন্তত ৩ মিটারের বেশি তো নয়ই।

ব্যাগ ভর্তি সারকে শুকনো ও পরিষ্কার মেঝেতে রাখা উচিত। শুকনো সিমেন্টের মেঝেতে সার বস্তা সংরক্ষণ করা উচিত। সার যেখানে মজুত হবে সেই স্থানে অন্য কোনও কৃষিজাত দ্রব্য রাখা যাবে না।

সার সুরক্ষিত রাখতে হলে এই নিয়মগুলো মেনে চললে সারের ক্ষতি অনেকাংশে ঠেকানো সম্ভব। সার বাঁচলে ফসলও বাঁচবে এই কথা মাথায় রেখে সারের রক্ষণাবেক্ষণ করা উচিত।