৩০ মণের কালোমানিক বিক্রি হবে সাড়ে ৮ লাখে

আসন্ন কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে প্রস্তত করা হয়েছে ‘কালোমানিক’ নামের একটি ষাঁড় গরু। পরম যন্তে লালন-পালন করা হচ্ছে কালোমানিককে। কালোমানিকের ওজন প্রায় ৩০ মণ।

এ ষাঁড় গরুটির দাম চাওয়া হচ্ছে সাড়ে ৮ লাখ টাকা। ৬ ফুট ২ ইি উচ্চতায় এ গরুটি উপজেলায় আনেহলা ইউনিয়নের খায়েরপাড়া গ্রামের চান মিয়া লালন-পালন করেছেন। শখ করে পালন করা এই ষাঁড়টি দেখার জন্য প্রতিদিনই তার বাড়িতে ভিড় করছেন আশেপাশের এলাকাসহ দুরদুরান্তের উৎসুক লোকজন।

তার পরিবারের কোন লোক না থাকায় ও করোনাভাইরাস ঝুঁকির কারণে তিনি হাটে তুলতে চান না গরুটি। ছন।

চান মিয়া বলেন, ‘ষাঁড় টি জন্মের পর থেকেই আমি লালন পালন করছি। সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে লালন পালন করেছি। গরুটিকে মোটাতাজাকরণের ওষুধ ও ইনজেকশন এমন কোনো কিছুই প্রয়োগ করা হয়নি। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবার খাইয়ে বড় করা হয়েছে। পাশাপাশি সম্পূর্ণ উপজেলা প্রাণী সম্পদ অনুমোদিত মেশিনে তৈরি খাবার ও বিজ্ঞানসম্মত সঠিক পরিচর্যা করা হয়েছে। প্রতিটি গরুকে দেশীয় খাবার যেমন: মাল্টা, পেয়ারা, ছোলার ভূষি, মসুরির ভূষি, ভুট্টার গুঁড়া, গমের গুঁড়া, গমের ভূষি, কাঁচা ঘাস ও খড় খায়িয়ে বড় কারা হয়েছে। ছাড়াও তার কাছে ছোট-বড় আরও তিনটি গাভী গরু রয়েছে বলে জানান চান মিয়া।

এ ব্যাপারে উপজেলা ভেটেরিনারী সার্জন বাহাউদ্দিন সারোয়ার রেজভী বলেন, চান মিয়া তার খামারে দেশীয় খাবার খাইয়ে গরুটিকে লালন-পালন করেছেন। ষাঁড়টিকে নিয়মিত দেখাশোনা করা হচ্ছে। উপজেলায় আরো বড় গরু মোটাতাজা করা হচ্ছে তার মধ্যে এই ষাঁড়টিই অন্যতম। সব থেকে বড় বলেও তিনি জানান।