উদ্যান ফসল

আমের কালো পর্দা-ঝুল-শুটি মোল্ড রোগ প্রতিকারে করণীয়

আমের কালো পর্দা বা ঝুল বা শুটি মোল্ড রোগের প্রতিকারে করণীয় জানিয়েছে কৃষি তথ্য সার্ভিস। এতে বলা হয়েছে, ফল সংগ্রহ শেষ হলে গাছের মরা ডালপালা, ফলের বোটা, রোগ বা পোকা আক্রান্ত ডালপালা এবং অতি ঘন ডালপালা ছাঁটাই করে পরিষ্কার করে নিতে হবে। আমবাগান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন আগাছামুক্ত ও খোলামেলা অবস্থায় রাখতে হবে।

গাছে হপার/মিলিবাগ/স্কেল পোকা দমনে রাখলে শুটি মোল্ড হওয়ার শঙ্কা থাকে না। গাছে হপার, মিলিবাগ বা স্কেল পোকার আক্রমণ থাকলে সাইপারমেথ্রিন গ্রুপের কীটনাশক প্রতি লিটার পানিতে এক মিলিলিটার হারে মিশিয়ে গাছে মুকুল আসার পর ফুল ফোটার আগে গাছের পাতা মুকুল ও ডালপালায় ভালোভাবে ভিজিয়ে একবার স্প্রে করতে হবে। আবার আম গুটি বা মার্বেল আকার ধারণ করলে উপরে উল্লেখিত ওষুধ আরও একবার স্প্রে করতে হবে।

ছত্রাক দমনের জন্য গাছে মুকুল আসার পর কিন্তু ফুল ফোটার আগে সালফার জাতীয় ছত্রাকনাশক প্রতি লিটার পানিতে ২ গ্রাম হারে মিশিয়ে গাছের পাতা, মুকুল ও ডালপালা ভালোভাবে ভিজিয়ে একবার স্প্রে করতে হবে। আম গুটি বা মার্বেল আকার ধারণ করলে উপরে উল্লেখিত ওষুধ আরও একবার স্প্রে করতে হবে।

আম পরিপক্ক ও পাকার মৌসুমে আম কাগজ (ব্রাউন পেপার) বা পলিথিন ব্যাগে মুড়িয়ে দিয়ে পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে হবে। আম পরিপক্ক বা পাকার মৌসুমে আমবাগানে স্টেবল রিচিং দ্রবণ (১০০ গ্রাম টেবিল ব্লিচিং পাউডার+ ১০০ গ্রাম বরিক এসিড + ৪.৫ লিটার পানি) গাছে স্প্রে করতে হবে।

আমের ওপরের রোগ দমনের জন্য ফল স্টেবল ব্লিচিং দ্রবণে (১০০ গ্রাম স্টেবল ব্লিচিং পাউডার + ১০০ গ্রাম বরিক এসিড + ৪.৫ লিটার পানি) দুই মিনিট ডুবিয়ে রাখতে হবে। তারপর পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে খোলা বাতাসে শুকাতে হবে।